জগিং সম্বন্ধে কয়েকটি প্রয়োজনীয় তথ্য

কখন জগিং করবেন-যদি সকালবেলা জগিং করতে কোনরকম অসুবিধে হয় তবে বিকেল বেলায় করা স্থির করুন। তবে যারা ওজন বা মেদ কমাতে আগ্রহী তাদের পক্ষের নৈশাহারের আগে স্বাভাবিক মাত্রা রেখে জগিং করা এক দিক দিয়ে সুবিধা জনক। কারণ পরিমিত জগিং এ খিদে কমে যায় বলে রাতে কম খেলে চলে। প্রসঙ্গত কখনোই অত্যাধিক রোদ বা উত্তাপ  থাকাকালীন জগিং করবেন না।

কোথায় করবেনঃ- সিমেন্ট এর ফ্লোর বা পাথরের জায়গায়, বেড়ানো বা জগিং এর জন্য আদুর যথাযথ নয়। সবুজ ঘাসে ঢাকা মাঠই প্রশস্ত। কিন্তু তেমন জায়গা সবসময় হাতের কাছে নাও পেতে পারেন। তখন যে ধরনের রাস্তা আপনার হাঁটু সহ করে, পরীক্ষা করে তেমন রাস্তায় নির্বাচন করুন।

গায়ে কি পরে করবেনঃ- জগিং এর পোশাক সম্পর্কে মনে রাখতে হবে যে সেই পোশাক পড়ে খুব গরম যেন না লাগে আবার খুব শীতবোদও না হয়। গ্রীস মি একটা স্পোর্টস গেঞ্জি অঅর শর্টস পরে বেরিয়ে পড়ুন। শীতকালের জন্য একটা track suit থাকলে ভালো হয়। না হলে বেশ দিলে এবং নরম ট্রাউজার স্পোর্টস শার্ট আর তার উপর হালকা একটা সোয়েটার  হলেই চলবে। শুধু দেখবেন জগিং এর সঙ্গে সঙ্গে দেহের তাপমাত্রা যখন বেশ বেড়ে যাবে তখন সুয়েটার শার্ট টি আপনি যেন সহজে খুলে ফেলতে পারেন।

 

পায়ে কি পরে করবেনঃ- জগিং এর ক্ষেত্রে পদার্পণ টি কি ধরনের হবে সেটা যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। কেননা যথাযথ জুতোটি না পরলে  নানা দৌহিক উপসর্গ দেখা দিতে পারে। এজন্য জুতোর দোকানে নিজেইগিয়ে সেরা রানিং সুটি গ্রহণ করুন। রানিং সু তে  থাকে বাড়তি কুশন দিয়ে পা দুটিকে সুরক্ষার ব্যবস্থা সচারাচর খেলার ক্যাটস যা থাকে না। এই cushioned arch support ব্যবস্থাটি জগিং এর জন্য অত্যাবশ্যক। এর অভাবে জগিং এর সময় গোড়ালির ট্যান্ডন গুলিতে ব্যথা heel bone spur প্রভৃতি.

 

মোটকথা জগিং এর জন্য জুতোটি এমন হওয়া দরকার যাতে আপনার দেহের বার ছড়ানো বাবে পরে এবং গোড়ালির উপর কোন বাড়তি চাপ না সৃষ্টি করে। এর জন্য প্রয়োজন বেশ চড়া হিল, হিল এবং ইনসলের মাঝে যথেষ্ট প্যাডিং যাতে সেটা shock support হিসেবে কাজ করতে পারে, জুতো টির নমনীয়তা তাহলে জগিং এর সময় জুতো টিতে যত বাজ পড়ুক না কেন, তা আর পায়ের উপর কোন অতিরিক্ত চাপ বা ঘর্ষণ সৃষ্টি করতে পারবে না।

কি খেয়ে করবেনঃ- কখনই একেবারে খালি পেটে হাঁটতে বা জগিং করতে যাবেন না। খুব ভোর বেলায় হলেও শুরু করার আগে অতি অবশ্যই কয়েক টুকরো ফল বা দুই থেকে চারটি বিস্কিট মুখে দিন। খালি পেটে হাঁটার চেয়ে জগিং করা আরো বিপদজনক। কেননা সে ক্ষেত্রে মুক্ত ফ্যাটি এসিডগুলি রক্তের নিক্ষিপ্ত হয়ে দেহের তথা হূদযন্ত্রের মাংসপেশী গুলিকে অত্যন্ত বিব্রতকরে। যাদের করোনারি ধমনী গুলি বেশ  রুদ্র এটা তাদের ক্ষেত্রে ভেন্ট্রিকুলার ফাইব্রিলেশন তো বটেই এমনকি মৃত্যুরও কারণ হতে পারে।

কিভাবে শেষ করবেনঃ- জগিং শেষ করার পর অন্তত পাঁচ মিনিট স্বাভাবিক গতিতে হাঁটা দরকার। এতে দেহে রক্ত সঞ্চালনের ভারসাম্য বজায় থাকে।

 

Check Also

পুরুষের গুণাগুণ বিচার

সর্বতােভাবে সুখী হয় সেই ব্যক্তিই যার কণ্ঠস্বর ,  বুদ্ধি ও নাভি গভীর । হয় ।  …