ডায়াবেটিস চিনবেন কিভাবে?

১.গলা শুকিয়ে, যাওয়া বারবার পানি পিপাসা,  পানি খেলেও পিপাসা না মেটা।

২ বারবার ক্ষুধা লাগা। কোনো কারণ ছাড়াই ওজন কমে যাওয়া।

৩ চোখে দেখতে অসুবিধা।

৪ শরীরের কোথাও কেটে গেলে কিংবা আঘাত পেলে তা তাড়াতাড়ি সারে না।

৫ মহিলাদের মাসিকের সমস্যা দেখা যায়।

৬ বারবার টয়লেটে যাওয়ার প্রবণতা।

৭ ওজন অতিরিক্ত বেড়ে গেলেও ডায়াবেটিস হতে পারে।

৮ ৩৫  বছর বয়স থেকে নিয়মিত ডায়াবেটিস চেকআপ করা জরুরি।

৯ ডায়াবেটিস আছে কিনা তা জানার জন্য ওরাল গ্লুকোজ টলারেন্স টেস্ট জরুরি। এছাড়া ব্লাড সুগার পরীক্ষার দাঁড়াও জানা যাবে আপনার ডায়াবেটিস আছে কিনা।

 

ডায়াবেটিস রোগঃ-উদিত ভোজনের প্রাথমিক ফল হলো ডায়াবেটিস। বেশি খাওয়ার কারণে লালাগ্রন্থিকে বেশি কাজ করতে হয়। এ কারণে অভ্যান্তরীণ আর্দ্রতা বা Insulin অর্থাৎ বহুমূত্র রোগের প্রতিষেধক কমে যায় এবং রক্তের চিনির বা Suger পরিমাণ বেড়ে যায়.

ব্লাডপ্রেসার:-অধিক ভোজন রক্তের চাপ বৃদ্ধি একটা অত্যাবশ্যকীয় দ্বিতীয় কারণ,কেননা ডায়াবেটিস এবং ব্লাড প্রেসার পরস্পর সম্পর্কযুক্ত।

 

হৃদরোগঃ-শিরার সংকীর্ণতা হৃদরোগের অন্যতম কারণ কেননা শিরার চূড়ান্ত সংকীর্ণতা হৃদপিন্ডের সঙ্গে যুক্ত হয়। এমনতো অবস্থায় হৃদপিন্ডের পরিবর্তন হওয়া এক অতি স্বাভাবিক ব্যাপার। রক্তে পরিবর্তনে প্রস্রাবের শর্করা অর্থাৎ চিনির ভাগ  বেড়ে গেলে বহুমূত্র রোগ হয়। প্রধানত প্রতি ১০০ মি,লি রক্তে অভুক্ত অবস্থায় ১২০ মি, গ্রাম এর উপর শর্করা জমলে তবেই প্রস্রাবে শর্করা ধরা পড়ে এ রোগের সর্বজনবিদিত নাম মধুমেহ ডায়াবেটিস বহুমূত্র মধুমেহ একই রোগের বিভিন্ন নাম।

Check Also

পুরুষের গুণাগুণ বিচার

সর্বতােভাবে সুখী হয় সেই ব্যক্তিই যার কণ্ঠস্বর , বুদ্ধি ও নাভি গভীর । হয় । …