প্রাথমিক চিকিৎসার উদ্দেশ্য

১। জীবন বাঁচানো

২। জীবন যেন উত্তরোত্তর সংকটাপন্ন না হয়ে উঠে তা প্রতিরোধ করা

৩। যথাশীঘ্র সম্ভব আরোগ্য করে তোলার ব্যবস্থা নেওয়া

দুর্ঘটনা কবলিত মানুষকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদানকারীর দায়িত্ব ও কর্তব্যঃ-

১। দুর্ঘটনাস্থল ও দুর্ঘটনা কবলিত মানুষকে সার্বিক পরিপার্শ্বিক অবস্থা বিবেচনা করা

২। দুর্ঘটনা কবলিত মানুষের প্রকৃত অবস্থা সম্বন্ধে তাৎক্ষণিক ধারণা নেওয়া

৩। তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় সঠিক ও সীমিত সুযোগ ও পর্যাপ্ত প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা এবং অনতিবিলম্বে নিকটবতী চিকিৎসাকেন্দ্রে অথবা হাসপাতালে প্রেরণ করা।

প্রাথমিক শিক্ষা প্রদানকারী কে হতে হবে ধীর-স্থির। নিতে হবে জীবন বাঁচানোর দায়িত্ব। দুর্ঘটনা কবলিত মানুষ অসুস্থ ব্যক্তির যদি জ্ঞান থাকে তবে তাকে তাকে সাহস দিন সান্তনা দিন। তার সাথে কথা বলুন। তার সমস্যা শুনুন বলুন আপনি একা নন। আমরা আপনার পাশে আছি। সম্ভাব্য সব ধরনের সাহায্য সহযোগিতার পূর্ণ আশ্বাসে তাকে মানসিকভাবে সাহসী করে তুলুন। দুর্ঘটনাকবলিত রোগী ও আপনার নিজের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন। দুর্ঘটনাকবলিত অসুস্থ মানুষের শ্বাস ক্রিয়া ঠিকমত চলছে কি না শরীর থেকে রক্তপাত হচ্ছে কিনা এবং তিনি সচেতন কিনা পরীক্ষা করুন। প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান কালে প্রয়োজনে অন্যের সাহায্য নিন। তাদের বলুন কি করতে হবে আপনাকে সাহায্য করার জন্য।

আহত অথবা অসুস্থ ব্যক্তির প্রকৃত সমস্যা নিরূপণঃ- দুর্ঘটনার পূর্ব বিবরণ নিন। দুর্ঘটনার ধরন জানুন। সঠিকভাবে পরীক্ষা করুন এবং দৈহিক আলামত সম্বন্ধে ধারণা নিন। রোগীর জ্ঞানের পরিধি নিরূপণ করুন। অজ্ঞান হলে সাথীদের কাছ থেকে বিবরণ শুনুন। অসুস্থতার প্রকৃত ধর্ম সম্বন্ধে তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত নিন এবং অবিলম্বে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করুন।

Check Also

পুরুষের গুণাগুণ বিচার

সর্বতােভাবে সুখী হয় সেই ব্যক্তিই যার কণ্ঠস্বর , বুদ্ধি ও নাভি গভীর । হয় । …