প্রোটিন ফেস প্যাক তৈরি

আমরা যেমন আমাদের শরীরের সুস্থতার জন্য প্রোটিনযুক্ত খাবার খেয়ে থাকি-ত্বক ও তেমন তার চাহিদা অনুযায়ী প্রোটিনযুক্ত উপাদানের জন্য উন্মুখ হয়ে থাকে।কিন্তু তার চাহিদা জানাবার ভাষা আমরা সহজে যেন বুঝতে পারি না বা বুঝতে চাই না।পলে খুব কম বয়সেই আমাদের অনেকের ত্বক হারিয়ে ফেলে তার সক্রিয় উজ্জ্বলতা।অনেক ফর্সা ত্বক ও কালো হতে শুরু করে।মোটকথা ত্বক উজ্জ্বল করার উপাদানগুলো একটু একটু করে মরে যেতে শুরু করে।এই অবস্থায় আপনাকে অবশ্যই প্রোটিনযুক্ত ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে হবে।বাজারে বিভিন্ন কোম্পানির ফেস প্যাক কিনতে পাওয়া যায়।আপনি চাইলে নিচের উপাদানগুলো জোগাড় করে ঘরেই বানিয়ে নিতে পারেন প্রোটিন ফেস প্যাক।

১।একটি ভালো টাটকা ডিম।

২।আধা টেবিল চামচ নারকেল তেল।

৩।এক টেবিল চামচ মধু।

৪।একটি পরিষ্কার শুকনো ট্রে।

৫।এক রোল টয়লেট টিস্যু পেপার।

–প্রথমে একটি পরিষ্কার পাত্রে ডিমটি ভালো করে ফেটে নিন।

–তারপর নারকেল তেল তারপর মধু উক্ত ফেটানো ডিমে মিশিয়ে ভালো করে ফেটিয়ে নিন।

–তারপর টিস্যু পেপার এর এক একটি ভাগ ট্রের ওপর বিছিয়ে তার উপর সামান্য পুরু করে উক্ত মিশ্রণটি একটু একটু করে ঢেলে দিন।

–এবার ফুরো ট্রে কাগজ ঢাকা দিয়ে সারা রাতের জন্য ঢুকিয়ে রাখুন ফ্রিজের নরমাল অংশে।

–সকালে মুখ পরিষ্কার ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে উক্ত ট্রে থেকে যে কয়টি প্রয়োজন টিস্যু পেপারের টুকরো বের করে লোশন এর প্রলেপ দেওয়া দিকটা মুখের উপর লাগিয়ে রাখুন।

–মোটামুটি দশ মিনিট পরে ঠাণ্ডা অনুভূতি কমে আসতে থাকলে টিস্যু পেপারগুলো একটি একটি করে তুলে ফেলুন।তারপর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

সপ্তাহে ছয়দিন হিসাবে পুরো দুই মাস এই প্যাক ব্যবহার করলে মরা ত্বক উজ্জ্বল হবে এটা নিশ্চিত করে বলা যায়।তবে মনে রাখবেন,প্রতিদিনের ফেসপ্যাক প্রতিদিন তৈরি করে নিতে হবে।এক দিনের পুরনো ফেসপ্যাক পরের দিন ব্যবহার করবেন না।

 

 

Check Also

পুরুষের গুণাগুণ বিচার

সর্বতােভাবে সুখী হয় সেই ব্যক্তিই যার কণ্ঠস্বর ,  বুদ্ধি ও নাভি গভীর । হয় ।  …